রাজকুমারী

সরল মনের তরল বালিকা কোন এক প্রত্যন্ত গ্রামের ,
যাকে কুতসিত বলা যেতে পারে কিন্তু অসুন্দরী বলা যায় না ;
পরের বাড়ীতে কাজ করা হাড় জিরজিরে
বিধবা মাকে বলেছিল কোন এক সকালে
"মা,বড় হলে ওই শাপলা পুকুরে ডুব দিয়ে
জলকন্যা হয়ে জল-রাজকুমারী হ্ব আর তুমি হবে রাজমাতা !"
    সজল চোখে ভাঙা গলায় ম বলে -
"শোন কথা!তুই তো আমার বুকের রক্তে
রাজরানী ";
 মেয়েটিকে চিনতাম,আমার বাড়ীতে যখন
রুগ্না মায়ের সঙ্গে হাত মিলিয়ে কাজ করত
-সময় পেলেই অবাক করে নির্লজ্জের মতো জানাত -
"দাদা আমাকে ওই পুকুরের রাজকুমারী
করে দাও না !"
     ওর মাথায় হাল্কা চাটি মেরে বলতাম -
"তোর স্বপ্নের গলিতে রাজা-রানীর
দিন শেষ !"

তবুও তার চোখে স্বপ্ন - অপার বিস্ময়ের স্বপ্ন-স্বপ্ন-স্বপ্ন ;
      মেয়েটির স্বপ্ন যেন কথা বলতো -
       ঠাকুমার ঝুলির রাজ-কাহিনী !
আমার গ্রামের পাশে শাপলা কখন যে মজে গেল - সেই তারিখটাও আজ মনে নেই; রাজকন্যার মা শাপলার ডাঁটা তুলতে গিয়ে কেমন করে জানি না মারা পড়ল,তা আজ হিসাবের বাইরে !
আর মেয়েটি কোন এক হয়তো রাজকুমারী হতে চলে যায় কোন এক
             দূর - বুহুদূর দেশে !

    এই তো সেদিন ঘটলো এক ঘটনা -
     যদিও লজ্জার,তবুও বলি কারণ -                আজকাল নির্লজ্জতাই মজার; স্প্ল্যানেডের মোড়ে একটি মেয়ে আমার     মতো অফিস ফেরত 'বাবু'দের চাহিদা মেটানোর জন্য ইঙ্গিত করলো,সুসুপ্ত
কামনা হাজার ফণা মেলে বলে-"কত"?
চটপট উত্তর," দিও কিছু-হ্যাঁ সিনেমা হলের টিকিটের দাম লাগবে গো ";
মেয়েটির গড়ন ভালো কিন্তু সুন্দরী বলা যায় না !এই লাইনে 'ওদের' নাম নেই -
দরকারও নেই ;
          তবুও বললাম-" নাম কি ?"
পুরনো গলা কানে এলো ধীর লয়ে -
" শাপলা পুকুরটা আর আছে কি ?"
আর দাঁড়াই নি - ঘেন্না হয়েছিল - ক্ষমা
করিনি ওকে ; রাস্তায় একদলা পিচ করে থুতু ফেলে শুধু বলেছিলাম- " ছিঃ "!
পিছন থেকে হাসির শব্দের ওই কুলটাকে
আরও নগ্ন করে গা গুলিয়ে তুলছিল !

আমার গ্রাম আর নেই গ্রাম,ভরাট সে পুকুরে উঠেছে আজ আকাশচুম্বী অট্টালিকা; আর সেই ফ্ল্যাটের ওপর তলায় এখন আমি থাকি - শাপলা পুকুরের জলকন্যার বুকের উপর !
বয়সের সাথে সাথে চুলে ধরেছে পাক ,
     ক্ষমা করেছি ওই ' রাজকন্যা 'কে !
   প্রত্যন্ত গ্রাম-বাংলার কত মেয়ে হতে       চেয়েছিল, শাপলা বা পদ্মপুকুরের -
               রাজ - রাজেশরী -!

দধীচি তাঁর অস্থি দিয়ে প্রাণ রক্ষা করেন ইন্দ্রকে, আর ওরাও রক্ষা-ঠাণ্ডা করে     আমার-তোমার নগ্ন ইন্দ্রিয়কে , সমাজ
      পুকুরের পাঁকের পাটরানী হয়ে !
         স্বপ্ন-বহু স্বপ্ন - অনেক স্বপ্ন -
স্বপ্ন এখন পাঁচ ইঞ্চির পাকস্থলী পূরণের!!

Comments

Popular posts from this blog

মিছিল

ভারতীয় ভাস্কর্যে সমকামিতা

মণি-মুক্তা